পঞ্চম বর্ষ / দশম সংখ্যা / ক্রমিক সংখ্যা ৫২

শনিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৫

***** সম্পাদকীয় *****

কালিমাটি অনলাইন / ২৮

ঝড় ও বাতাসের মধ্যে চরিত্রগত যে পার্থক্য, তা একটা কিন্ডার গার্টেনের বাচ্চাও জানে, বোঝে। নতুন কিছু বোঝাবারও নেইবাতাসের অন্তরমহলেই আমাদের সবার  বসবাস, অনেকটা চিরস্থায়ী বন্দোবস্তের মতোই। আর ঝড় যদিও বাতাসেরই একটা বিশেষ প্রক্রিয়া, কিন্তু তার স্থায়িত্ব বড়ই কম; জন্মের পরেই সে তেড়ে যায় মৃত্যুর  মুখোমুখি। রবীন্দ্রনাথ একটি লেখায় অন্য এক প্রসঙ্গে ঝড় ও বাতাসের বৈশিষ্ট্যগত  পার্থক্য নির্দেশ করে বাতাসকেই স্বীকৃতি দিয়েছেন, ঝড়কে তেমন পাত্তা দেননি। আবার অন্যত্র একটি লেখায় তিনি পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে ঝড়কে স্বাগত জানিয়েছেন। আসলে ঝড় তার যাত্রাপথে ধ্বংসের যেসব বীভৎস নিদর্শন রেখে যায়, তা রীতিমতো দুঃস্বপ্ন বলে মনে হয়। কিন্তু শান্ত নির্মল বাতাস যদিও আমাদের সবার জীবনধারণে অপরিহার্য, প্রকৃত  ভাবনায় আমাদের জীবনসঙ্গী বা জীবনসঙ্গিনী; কিন্তু মাঝে মাঝেই সেই শান্ত বাতাসের রুদ্র রূপও প্রয়োজন হয়ে পড়ে। বস্তুত পুরনো নির্মাণ ও সৃষ্টি যদি তার প্রাসঙ্গিকতা হারিয়েও অটুট থাকে, তাহলে নতুন নির্মাণ ও সৃষ্টির আর অবকাশ কোথায়! কোনো আয়তন অচল হয়ে গেলে তার ধ্বংস অনিবার্য হয়ে পড়ে এবং সেই কাজটি নিপুণ ভাবে সম্পন্ন করে হঠাৎ ধেয়ে আসা ভয়ংকর ঝড়। এখানে কিন্তু বাতাস ও ঝড়ের পারস্পরিক কোনো বৈরীতা নেই। আর বলা বাহুল্য, এখানে যা কিছু বলা হলো, তার মধ্যেও কোনো নতুনত্ব ও অভিনবত্ব নেই। ঐ যে বললাম, একটা কিন্ডার গার্টেনের বাচ্চাও এসব জানে, বোঝে। কিন্তু তাসত্ত্বেও আমাদের জীবনযাপনে, আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থায়, রাজনৈতিক কাঠামোয়, শিক্ষা-সংস্কৃতি-ধর্ম ভাবনায়, মানবিকতার ধারণায় কেন যে আমরা বৈপরিত্যের শিকার হই, স্থিতাবস্থা বজায় রাখার জন্য চরম রক্ষণশীলতার আশ্রয় নিই, তা সত্যিই বড় বিষ্ময়ের ব্যাপার! পুরনো জুতোয় পা গলিয়ে আমরা আরামে নিশ্চিন্তে থাকি, নতুন জুতোয় পায়ে ফোস্কা পড়ার আশঙ্কায়। অথচ সারা বিশ্ব ব্রক্ষ্মান্ড জুড়ে আমরা যা কিছু নতুনের সুলুকসন্ধান পাই, তা সম্ভব হয়েছে পুরনোকে ঝেঁটিয়ে বিদেয় করে। আর এসব কিছুই ঘটে নিতান্তই বিজ্ঞানের নিয়ম সূত্র ও প্রযুক্তির বিকাশের দরুন। তবু আমাদের অমূলক দ্বিধা ও দ্বন্দ্বের ফলশ্রুতিতে নতুন সৃষ্টি, নতুন নির্মাণকে সহজে গ্রহণ করতে আমরা অস্বীকার করি, তা সে আমাদের জীবনযাপন, আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থা, রাজনৈতিক কাঠামো, সাহিত্য, শিল্প, কলা, সঙ্গীত, শিক্ষা, প্রাতিষ্ঠানিক ধর্ম, সংস্কৃতি ইত্যাদি যে কোনো ক্ষেত্রেই হোক না কেন। আর আমাদের এই দ্বিচারিতাই আমাদের পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে থাকে, ক্ষেত্র বিশেষে পঙ্গু করে রাখেএবং আমরা এই সত্য যত তাড়াতাড়ি  হৃদয়ঙ্গম করতে পারব, ততই আমরা প্রকৃত সভ্যতার দাবীদার হতে পারব।

কালিমাটি অনলাইনের বিভিন্ন বিভাগের জন্য আপনাদের লেখা ও ছবি পাঠাতে আবার অনুরোধ জানাই। সেইসঙ্গে প্রকাশিত লেখা ও ছবি সম্পর্কে আপনাদের সুচিন্তিত অভিমত। আপনাদের ভালো লেখা প্রকাশের জন্য আমরা দায়বদ্ধ।


আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের ই-মেল ঠিকানা :

দূরভাষ যোগাযোগ :           
0657-2757506 / 09835544675
                                                         
অথবা সরাসরি ডাকযোগে যোগাযোগ :
Kajal Sen, Flat 301, Phase 2, Parvati Condominium, 50 Pramathanagar Main Road, Pramathanagar, Jamshedpur 831002, Jharkhand, India
     



    

2 কমেন্টস্:

  1. নতুনকে ধারণ করার নামই শিল্প । এই মানসিকতা একমাত্র শিল্পীই অর্জন করতে পারেন ।

    উত্তরমুছুন