পঞ্চম বর্ষ / অষ্টম সংখ্যা / ক্রমিক সংখ্যা ৫০

শনিবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

<<<< সম্পাদকীয় >>>>

কালিমাটি অনলাইন / ৪১  

আমরা সারাটা বছর অপেক্ষা করে থাকি, কবে আবার নতুন জানুয়ারী মাসের শেষ সপ্তাহ আসবে, আর শুরু হবে কলকাতা বইমেলা।  আসলে বইমেলা এখন আমাদের কাছে অন্যতম বাৎসরিক মেলা বা উৎসব হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা যারা ভারতে  কলকাতায় এবং  তার দূরে ও কাছে এবং অন্যান্য রাজ্যে বসবাস করি, তারা নিজের নিজের অঞ্চলে আয়োজিত বইমেলায় সমবেত হলেও কলকাতা বইমেলার প্রতি একটা স্বতন্ত্র আকর্ষণ অনুভব করি। যেমন বাংলাদেশে সবাই সমবেত হন ঢাকায় আয়োজিত ফেব্রুয়ারী মাসে একুশে বইমেলায়। এবং এটা অনুমান করা যেতে পারে, পৃথিবীর অন্যান্য দেশের বিভিন্ন শহরেও বইমেলা এভাবেই সেইসব অঞ্চলে বসবাসকারী মানুষের কাছে প্রবল উৎসাহ ও উদ্দীপনা বয়ে নিয়ে আসে। আর সব থেকে উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হলো, অন্যান্য অধিকাংশ উৎসব যখন পালন করা হয়, তখন সেই উৎসবের অন্তরমহলে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ভাবে জড়িয়ে থাকে বিভিন্ন ধর্মগত, সম্প্রদায়গত, জাতিগত, বর্ণগত, দেশগত, ভাষাগত ভাবনা ও ধ্যান-ধারণা, আচার-আচরণ ও  দৃষ্টিকোণ। কিন্তু বইমেলায় আমরা অনায়াসে উপেক্ষা ও অবহেলা করি এইসব কুসংস্কার ও সংকীর্ণতা। ‘মেলা’ শব্দটি থেকে ‘মিলন’ শব্দটি এসেছে অথবা ‘মিলন’ শব্দটি থেকে এসেছে ‘মেলা’ শব্দটি! কিন্তু মেলা বা মিলন যাই হোক না কেন, সব রকম বিভিন্নতা, অসমতা, বিষমতা, ভেদ ও পার্থক্য থাকা সত্বেও পরস্পরের সঙ্গে  পরস্পরের মিলেমিশে যেতে কোনো বাধা থাকে না, কোনো বিধি-নিষেধ থাকে না। আজ (২২শে ডিসেম্বর) একটি দৈনিক সংবাদপত্রে (আজকাল) একটি গুরুত্বপূর্ণ খবর  পড়লাম। সুপরিচিত প্রাবন্ধিক অমিতাভ চৌধুরী কৃষ্ণনগর পাবলিক লাইব্রেরির মাঠে  ৩২তম নদীয়া বইমেলার উদ্বোধন করে ‘বইমেলা’ নাম পরিবর্তন করে ‘বই উৎসব’ নামকরণ করার প্রস্তাব রেখেছেন। তিনি বলেছেন, “প্রথম যখন লিখতে শুরু করি, তখন প্রকাশকদের কাছে শুনতাম বই বিক্রি হয় খুব কম। বেশি বই বিক্রি করাই সমস্যা। কিন্তু এখন সেই অবস্থা নেই। এখন বইমেলাগুলিতে বই প্রচুর বিক্রি হয়। আগে বইমেলা সংখ্যায় খুব কম হতো। এখন বইমেলার সংখ্যা বেড়েই চলেছে। আর তাতে বই বিক্রির সংখ্যাও বাড়ছে। এখন বইমেলা কার্যত বইয়ের উৎসবে পরিণত হয়েছে। তাই বইমেলার নাম বই উৎসব করার প্রস্তাব রাখছি”। বলা বাহুল্য, অমিতাভ চৌধুরীর এই প্রস্তাবকে আমরা ‘কালিমাটি’ পত্রিকা ও ‘কালিমাটি অনলাইন’ ব্লগজিনের পক্ষ থেকে সমর্থন জানাছি।

প্রসঙ্গত উৎসবের প্রকৃত উদ্দেশ্য ও তাৎপর্য সম্পর্কে আমরা যথার্থ ধারণা লাভ করতে পারি রবীন্দ্রনাথের লেখা থেকে। ‘উৎসবের দিন’ প্রবন্ধে রবীন্দ্রনাথ লিখেছেন, “মানুষের উৎসব কবে? মানুষ যেদিন আপনার মনুষ্যত্বের শক্তি বিশেষভাবে স্মরণ করে, বিশেষভাবে উপলব্ধি করে, সেইদিন। যেদিন আমরা আপনাদিগকে প্রাত্যহিক প্রয়োজনের দ্বারা চালিত করি, সেদিন না; যেদিন আমরা আপনাদিগকে  সাংসারিক সুখ দুঃখের দ্বারা ক্ষুদ্ধ করি, সেদিন না; যেদিন প্রাকৃতিক নিয়ম পরস্পরায় হস্তে আপনাদিগকে ক্রীড়াপুত্তলির মতো ক্ষুদ্র ও জড়ভাবে অনুভব করি, সেদিন আমাদের উৎসবের দিন নহে; সেদিন তো আমরা জড়ের মতো উদ্ভিদের মতো সাধারণ জন্তুর মতো সেদিন তো আমরা আমাদের নিজের মধ্যে সর্বজয়ী মানবশক্তি উপলব্ধি করি না সেদিন আমাদের আনন্দ কিসের?  সেদিন আমরা গৃহে অবরুদ্ধ,  সেদিন আমরা কর্মে ক্লিষ্ট সেদিন আমরা উজ্জ্বলভাবে আপনাকে ভূষিত করি না সেদিন আমরা উদারভাবে কাহাকেও আহ্বান করি না সেদিন আমাদের ঘরে সংসারচক্রের ঘর্ঘরধ্বনি শোনা যায়, কিন্তু সংগীত শোনা যায় না। প্রতিদিন মানুষ ক্ষুদ্র দীন একাকী কিন্তু উৎসবের দিনে মানুষ বৃহৎ,  সেদিন সে সমস্ত মানুষের সঙ্গে একত্র হইয়া বৃহৎ, সেদিন সে সমস্ত মনুষ্যত্বের শক্তি অনুভব করিয়া মহৎ... আজ আমাদের কিসের উৎসব?  শক্তির উৎসব। মানুষের মধ্যে কী আশ্চর্য শক্তি আশ্চর্য রূপে প্রকাশ পাইতেছে! আপনার সমস্ত ক্ষুদ্র প্রয়োজনকে অতিক্রম করিয়া মানুষ কোন্ উর্ধ্বে গিয়া দাঁড়াইয়াছে। জ্ঞানী জ্ঞানের কোন্ দুর্লক্ষ্য দুর্গমতার মধ্যে ধাবমান হইয়াছে, প্রেমিক প্রেমের কোন্ পরিপূর্ণ আত্মবিসর্জনের মধ্যে গিয়া
উত্তীর্ণ হইয়াছে, কর্মী কর্মের কোন্ অশ্রান্ত দুঃসাধ্য সাধনের মধ্যে অকুতোভয়ে প্রবেশ করিয়াছে? জ্ঞানে প্রেমে কর্মে মানুষ যে অপরিমেয় শক্তিকে প্রকাশ
করিয়াছে, আজ আমরা সেই শক্তির গৌরব স্মরণ করিয়া উৎসব করিব। আজ আমরা আপনাকে, ব্যক্তিবিশেষ নহে, কিন্তু মানুষ বলিয়া জানিয়া ধন্য হইব
২০১৬ অতিক্রম করে ২০১৭ তে আমরা উপনীত হতে চলেছি। নতুন বছরকে স্বাগত জানাই, আর ‘কালিমাটি’ পত্রিকা ও ‘কালিমাটি অনলাইন’ ব্লগজিনের প্রিয় লেখক-লেখিকা ও পাঠক-পাঠিকাদের জানাই অন্তরের শুভেচ্ছা শ্রদ্ধা অভিনন্দন ও ভালোবাসা।        
     
আমাদের সঙ্গে যোগাযোগের ই-মেল ঠিকানা :

দূরভাষ যোগাযোগ :           
0657-2757506 / 09835544675
                                                         
অথবা সরাসরি ডাকযোগে যোগাযোগ :
Kajal Sen, Flat 301, Phase 2, Parvati Condominium, 50 Pramathanagar Main Road, Pramathanagar, Jamshedpur 831002, Jharkhand, India

      

0 কমেন্টস্:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন