পঞ্চম বর্ষ / নবম সংখ্যা / ক্রমিক সংখ্যা ৫১

শুক্রবার, ১ ডিসেম্বর, ২০১৭

শ্রেয়সী গঙ্গোপাধ্যায়

পাহাড়

পাহাড়ি দীঘল ঋতুবাস
ওগো ঘনায়মান সাঁঝের একাকী
পর্বতে কিছু পোশাক নিংড়ানো
আমাদের নামকরণ
মাছের আলেয়া
বাতাস তীব্র, শব্দের ভোরবেলা
কতটা পশম কেন্দ্রিক করে আপেল
রোজানা দেখাচ্ছে চুপিসার

মুর্শিদ

বৃষ্টির ভিতর হাঁটতে থাকা ক্রিয়াপদ
মুর্শিদ গোপনে এসে ফুলকে বলে
গন্ধ ঝরাও, গন্ধ ওড়াও
বিকেলের শীত নিয়ে রাতকে দাও
গভীর লেখার ভিতর ঘাস হয়ে যাক
আলো বাতাসের মাহুত
চিৎকার চিৎকার খেলা খেলছে মুর্শিদ
জংলা চাদরে বেনাকাব বনাঞ্চল
পাহাড়কে বলছে পিলসুজ
রেকাবি হয়ে যাও ভবঘুরে

ঘুম

হঠাৎ ঘুম ভাঙলে তেতো লাগে মুখ
আঁশটে মুখ চুমুকের ঘোরে দুধে নষ্ট
জ্যান্ত কিছু সাপেরা বসেছে রেয়াজে
আক্ষেপ ঘন মিলনের মরফিন
ধোঁয়া ধোঁয়া জগত জোড়া পিউরিটান
আমাদের দোষ ত্রূটি ঘেরা বিদায়বেলা
আমাদের যা কিছু কতটা আঁকিবুকি

বাতাস

বাতাসের আয়নায় ঘন মেঘ
মৃত কুহকের বাতাসে বিশ্ময়
যেখানে সুসময় দাঁড়িয়ে
অরক্ষিত কেন্দ্র আঁকছে জনান্তিকে
মেঘলা পোড়াও
বিহনের শূণ্য ঘ্রাণ
রোদকে ডাকছে পারিজাত
বসন্ত বেদনার ক্রশকাঠ
জাগছে তা থৈ
ডাকছে মূহ্যমান
বলছে বেআব্রু মায়াজাল

নাভি

শীত প্রবণ গন্ধের ঘাসফুল
দীর্ঘরাত চড়াও হয়েছে অনুবাদে
মেঘলা গাড়োয়াল খোলা চুলে
তর্জনী ভর্ত্তি খয়েরী দুপুরেরা
শব্দ উল্টে রাখি নাভির কিনারে
পাক্ষিক কতটা যাপন
চোখের গভীরে রাখা হাত

মানুষ খাচ্ছে বিস্তারিত

1 কমেন্টস্:

  1. শব্দ উলটে রাখি নাভির কিনারে --- দারুন মন উদাস করে দিচ্ছে

    উত্তরমুছুন